৭৬ বছর বয়সে ৬৯ সন্তানের জন্ম দিয়েছেন এক নারী এবং তার গল্প নানা প্রশ্নের জন্ম দিবে! ৭৬ বছর বয়সে ৬৯ সন্তানের জন্ম দিয়েছেন এক নারী এবং তার গল্প নানা প্রশ্নের জন্ম দিবে!

৭৬ বছর বয়সে ৬৯ সন্তানের জন্ম দিয়েছেন এক নারী এবং তার গল্প নানা প্রশ্নের জন্ম দিবে!

শিশুরা জীবনের ফুল, কিন্তু আমাদের মধ্যে বেশিরভাগ মানুষই কেবল ২ বা ৩ টি ছোট্ট ফুটফুটে বাচ্চা পেয়ে থাকেন। তবে, ইতিহাস থেকে এমন এক নারীর কথা জানা গেছে, যিনি ১৮ শতকে ৬৯ সন্তানের জন্ম দিয়েছিলেন। কিছু সূত্র মতে, তার নাম ছিল ভ্যালেন্টিনা ভ্যাসলিয়েভা এবং তিনি অত্যধিক সন্তান জন্ম লাভের জন্য গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ড গড়েন। 

আজকে আমরা এমন এক গল্প জানার সুযোগ পেয়েছি যা একজন নারীর শরীরের সীমাবদ্ধতা পরীক্ষা করে এবং সেটা বিশ্বাস করা না করা একান্তই আপনার ব্যাপার! আর্টিকেলের শেষে একটা ছোট্ট পৌরাণিক বোনাস রয়েছে, তাই মিস করবেন না!

 

রাশিয়ান কৃষিজীবীদের জীবাশ্ম উর্বরতা

digitalvortex.info

digitalvortex.info

ভ্যালেন্টিনা ভ্যাসলিয়েভা রাশিয়ার শুয়া এলাকা থেকে ফিডোর ভ্যাসলিয়েভা নামের এক কৃষকের প্রথম স্ত্রী ছিলেন। পরিবারটি ১৭০০ সালে ১৭০৭-১৭৮২ সালের মধ্যে বসবাস করতেন। মনে করা হয় যে, ভ্যালেন্টিনার ৬৯ জন সন্তান ছিল, যার মধ্যে ২জন মারা গিয়েছিল এবং তিনি ৭৬ বছর বয়সে মৃত্যুবরণ করেন।

গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডস অনুসারে, তাকে 'সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ মা' বলে দাবী করেছেন, কারণ তিনি ১৭২৫ সাল থেকে ১৭৬৫ সালের মধ্যে ১৬ জোড়া টুইন্স, ৭ জোড়া ট্রিপ্লেটস এবং ৪ জোড়া কোয়ার্ডুপ্লেট সন্তানের জন্ম দেন। 

 

© ArtsyBee / pixabay

© ArtsyBee / pixabay

স্পষ্টতই, তিনি তার জীবনের পুরো সময়জুড়ে জন্মদান করেন নি। তার 'ফার্টাইল বা উর্বর সময়' গণনা করার সময় অনুমান করা হয়েছে যে, সেইসব সন্তানেরা আনুমানিক ১৭২৫-১৯৬৫ সালের মধ্যে জন্মগ্রহণ করেছিল। ৪০ বছরে ২৭ বার প্রস্রব করেছেন। এটি প্রথম নজরে পর্যাপ্ত মনে হতে পারে, দ্বিতীয় নজরে অসম্ভব এবং তৃতীয় নজরে সন্দেহজনক, তাই কিছু হিসাব নিকাশ করা যাক! 

আপনি হয়ত জানেন যে গড় গর্ভাবস্থায় ৪০ সপ্তাহ লাগে। তবে, গর্ভাবস্থায় আপনার যত বেশি শিশু থাকবে, ততই আপনার প্রস্রববেদনা আগে আসবে।বিবিসি গণনা অনুসারে, মিসেস ভ্যাসলিয়েভার ৩৭ সপ্তাহ ধরে টুইনস প্রেগন্যান্সি, ৩২ সপ্তাহ ধরে ট্রিপ্লেটস এবং ৩০ সপ্তাহ ধরে কোয়ার্ডুপ্লেট প্রেগন্যান্সি থাকতে পারে।

আমরা যদি এটা যোগ করি, তাহলে আমরা ৯৩৬ সপ্তাহ পাবো। এক বছরে ৫২ সপ্তাহ থাকে, তাই আপনার যদি ফলাফলের সংখ্যা ভাগ করি তাহলে ১৮ বছর পাবো। সুতরাং, মিসেস ভ্যাসলিয়েভা তার জীবনের ১৮ বছরই বেলি বাম্প নিয়ে অতিবাহিত করেছেন। নিজেকে খুব চ্যালেঞ্জিং মনে হয়, তাই না?

 

প্রজনন বিশেষজ্ঞরা পুরো বিষয়টা অনুসন্ধান করেছেন

© Depositphotos.com

© Depositphotos.com

তাত্ত্বিকভাবে, মিসেস ভ্যাসলিয়েভার সব বাচ্চাদের ধারণ করার জন্য যথেষ্ট সময় ছিল, তাছাড়া বিবেচনা করার জন্য আরো কয়েকটি ঘটনা রয়েছে।

প্রথমত, একজন নারীর শরীর যখন প্রতি চক্রে বিভিন্ন ডিম ছেড়ে যায় তখন একাধিক ডিম্বস্ফোটনের মতো জিনিস থেকে যায়। বিশ্বে যদিও এটি সবচেয়ে স্বাভাবিক বিষয় নয় (আনুমানিক সমস্ত চক্রের প্রায় ৫-১০%),  ভ্যালেন্টিনার ক্ষেত্রেও এই ঘটনা ঘটার সম্ভাবনা বেশি। এক্ষেত্রে বিশেষ করে তিনি যদি ভেনিশিং টুইন সিন্ড্রোম এড়াতে পারেন তাহলে এই ধরণের ঘটনাটি ঘটেঃ যখন এক টুইন (বা কয়েকটি মাল্টিপলস) প্লেসেন্টা, একটি শক্তিশালী ভ্রূণ বা এমনকি মায়ের শরীরের দ্বারা শোষিত হয় তখন ঘটনাটি ঘটে। সিন্ড্রোমটি মাল্টিপলস গর্ভাবস্থায় ক্ষেত্রে স্বাভাবিক এবং ২১-৩০% কেসের ক্ষেত্রে এমনটি ঘটে।

 

© Depositphotos.com

© Depositphotos.com

দ্বিতীয়, গর্ভাবস্থা এবং প্রস্রববেদনা একজন নারীর শরীরের জন্য একটি চ্যালেঞ্জিং বিষয়। যখন গর্ভধারণ ১৮ মাসেরও কম সময়ের মধ্যে একের পর এক হয়, তখন মা এবং শিশুর স্বাস্থ্যের ঝুঁকি বৃদ্ধি পায়। একজন নারীর শরীর পূর্বের গর্ভাবস্থার কারণে সমস্ত পরিবর্তন থেকে পুনরুদ্ধারের জন্য যথেষ্ট সময় পায় না। বর্তমান দিনে পিঠাপিঠে দুইজন নিলেই অনেক ঝুঁকি হয়ে যায়, সেখানে মিসেস ভ্যাসলিয়েভা কিভাবে ২৭ জন সন্তান জন্মদান করেছেন? 


তৃতীয়ত, বিশেষজ্ঞরা এইসব শিশু (সেইসাথে তাদের মা) আধুনিক ওষুধ সেবনের মাধ্যমেও বেঁচে থাকবে কিনা এ নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেছেন। আর সেই নারী আঠারো শতকে রাশিয়ার প্রত্যন্ত অঞ্চলে থাকতেন। সেই সময়ে, প্রত্যেকটা গর্ভাবস্থা ঝুঁকির মধ্যে ছিল। তারা কৃষক ছিলেন এবং একই সময়ে তারা কাজ আর শিশুদের যত্ন নিতেন। ওহ! সেই সাথে এতোগুলো মানুষের জন্য খাদ্য এবং বস্ত্র সম্পর্কে ভুলবেন না। যারা বাবা-মা হয়েছেন তারা নিশ্চয়ই বুঝতে পারছেন আমরা কি বলতে চাচ্ছি!  

 

এই গল্পটি আসলে তথ্য দ্বারা সমর্থিত হয়

© Sergei Prokudin-Gorskii / commons.wikimedia.org

© Sergei Prokudin-Gorskii / commons.wikimedia.org

আপনি এখন পুরো বৈজ্ঞানিক সন্দেহ সম্পর্কে জানেন এবং এই ঘটনার সত্যতা সম্পর্কে বিশ্বাস করতে পারছেন না, তাহলে আমরা আপনার জন্য আরেকটি ঐতিহাসিক ঘটনা সম্পর্কে বলবো যা ভ্যালেন্টিনার পক্ষে সাফাই দিবে!

১৭৮২ সালের ২৭ ফেব্রুয়ারি নিকোলস্কি আশ্রম মস্কোতে একটা লিস্ট পাঠায়, যেটি প্রমাণ করে যে সেই সময় ফিডোর ভ্যাসলিয়েভারের ৮২ জন সন্তান জীবিত ছিল, তিনি ২টি বিয়ে করেন। তার দ্বিতীয় স্ত্রীর ১৮জন সন্তান ছিলঃ ১২টি টুইন এবং ৬টি ট্রিপল। লিস্টের তথ্যটি ১৮৩৪ সালে  সেন্ট পিটার্সবার্গে প্যানোরামায় প্রকাশিত হয়।

 

© Sergei Prokudin-Gorskii / commons.wikimedia.org

© Sergei Prokudin-Gorskii / commons.wikimedia.org

১৭৮৩ সালে দ্য জেন্টলম্যানস ম্যাগাজিন একটি আর্টিকেল প্রকাশ করেছিল, যেখানে ভ্যাসলিয়েভার কেসের বিষয়ে একটি তালিকা অন্তর্ভুক্ত করেছিল। আর্টিকেলের লেখক বলেছেন যে, 'অসাধারণ প্রজনন-শক্তি' একক পুরুষ বা নারী বা যৌথভাবে হতে পারে, তবে সম্ভবত তার দ্বিতীয় স্ত্রীর সাথে গল্পটি পুনরাবৃত্তি করার কারণটি ফিডোরের কারণে ছিল।

ল্যানসেটের আর্টিকেল দাবি করে যে, ফরাসি একাডেমী অফ সায়েন্সেস এই কেসের তদন্তের চেষ্টা করে এবং সেন্ট পিটার্সবার্গে ইম্পেরিয়াল একাডেমির সন্ধান করে। তারা বলেন যে, ভ্যাসলিয়েভা মস্কোতে বাস করতেন এবং সরকারের কাছ থেকে সুবিধা পেয়েছিলেন। 

 

বোনাস: "ভ্যাসলিয়েভারের পরিবার" 

© Unknown photographer / commons.wikimedia.org

© Unknown photographer / commons.wikimedia.org

এই ছবিটিকে প্রায়ই ভ্যাসলিয়েভার পরিবারের হিসেবে বিবেচনা কর আহয়, তবে আসলে এটি একটি ভুল ধারণা। এই ছবিতে আপনি জোসেফ এফ স্মিথের পরিবারকে দেখতে পাচ্ছেন, যিনি এলডিএস চার্চের একজন সভাপতি। তিনি ৬ বার বিয়ে করেন এবং ৪৫ জনের জন্মদাতা পিতা ছিলেন এবং ৫ জন বাচ্চা দত্তক নিয়েছিলেন। 

 

আপনার কি মনে হয়? আপনি কি বিজ্ঞানীদের সাথে একমত যে, এতগুলো প্রস্রবের পর বেঁচে থাকা এবং স্বাস্থ্যবান বাচ্চা হওয়া প্রায় অসম্ভব? নাকি ঐতিহাসিক ঘটনাটি বিশ্বাস করেন? বা মাঝামাঝি অবস্থানে থেকে সত্য মিথ্যা যাচাই করতে পারছেন না? আপনার মূল্যবান মতামত আমাদের সাথে শেয়ার করে জানান। সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ।  



জনপ্রিয়