যে ছয়টি কারণে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আপনার শিশুর ছবি শেয়ার করা বিপজ্জনক! যে ছয়টি কারণে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আপনার শিশুর ছবি শেয়ার করা বিপজ্জনক!

যে ছয়টি কারণে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আপনার শিশুর ছবি শেয়ার করা বিপজ্জনক!

গবেষণায় দেখা গেছে যে, প্রতি বছর গড় পিতা-মাতারা তাদের সন্তানদের প্রায় ৩০০টি ছবি পোস্ট করে থাকেন। বাচ্চাদের ছবির সংখ্যা প্রতি বছর বৃদ্ধি পায় এবং বর্তমান বাচ্চাদের স্কুল শুরু করার সময় অনলাইনে তাদের ছবি প্রায় ১৫০০টি থাকবে। এটা অধিকাংশ মানুষের কাছে মনে হতে পারে যে, আমাদের সন্তানদের জীবনের প্রতিটি মূল্যবান মুহূর্তগুলো পোস্ট করা বিপদজনক হতে পারে না।  

কিন্তু আমরা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আপনার শিশুর ছবি শেয়ার করার নেতিবাচক প্রভাব এবং কি কারণে এটা বিপজনক সে সম্পর্কে আপনাদের জানাতে চাই। 

 

১. আপনি আপনার সন্তানের অবস্থান এবং তথ্য প্রকাশ করছেন, যা অপরাধীরা কাজে লাগাতে পারে।

© kimkardashian / Instagram   © kimkardashian / Instagram

© kimkardashian / Instagram © kimkardashian / Instagram

এমনকি ছবিটি কোথায় এবং কেন নেওয়া হয়েছে তা উল্লেখ করা না থাকলেও, এমন কিছু সনাক্তকারী বৈশিষ্ট্যের নাম্বার রয়েছে যা আপনার সন্তানের ছবির উপর উপস্থিত থাকতে পারে। সেই বৈশিষ্ট্যের মধ্যে থাকতে পারে আপনার বাড়ির নাম্বার, নাম বা আশেপাশের দোকানের নাম, বাচ্চার হাতে থাকা খেলনা এবং পোষা প্রাণীর উপস্থিতি। অপরাধীরা শুধুমাত্র আপনার সন্তানের ছবি দেখে আপনার বাচ্চা কোন জায়গায় বেশি অবস্থান করেছে তা সনাক্ত করতে পারে।

 

২. ব্যক্তিগত তথ্য শেয়ার করলে অনলাইন প্রতারণার ঝুঁকি বৃদ্ধি পায়।

© madonna / Instagram   © madonna / Instagram

© madonna / Instagram © madonna / Instagram

ব্যাংক বিশেষজ্ঞরা নিশ্চিত যে, ব্যক্তিগত তথ্য সম্বলিত বাচ্চাদের ছবি শেয়ার করলে তাদের ভবিষ্যৎ আর্থিক নিরাপত্তা ঝুঁকিতে রাখতে পারে। পিতামাতারা যখন তাদের সন্তানের অসংখ্য ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে তখন তাদের সন্তানদের নাম, বাড়ির ঠিকানা, জন্মস্থান, পোষা প্রাণীর নাম, বাচ্চারা কোন দলকে সাপোর্ট করে সব প্রকাশ করতে পারে।  

এই সমস্ত তথ্য পরবর্তীতে অপরাধীরা প্রতারণামূলক ঋণ, ক্রেডিট কার্ড লেনদেন বা অনলাইন শপিং স্ক্যামের জন্য ব্যবহার করতে পারে। এজন্য নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞরা অনলাইন গোপনীয়তা সেটিংস পরীক্ষা করার জন্য বাবা-মায়েদের পরামর্শ দেন এবং এই পাবলিক স্পেসে কোন তথ্য প্রদর্শিত না করার জন্য সুপারিশ করেন।

 

৩. সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আপনার সন্তানের ছবি পোস্ট করলে বিপদজনক ব্যক্তিদের আকর্ষিত করতে পারে।

jlo

jlo

সোশ্যাল মিডিয়াতে আপনি যে ছবিগুলো শেয়ার করেন, সেগুলোর মধ্যে সবচেয়ে খারাপ বিষয়টি হল এটি সহজেই চুরি করা যায়। সেখানে এমন কতকগুলো ওয়েবসাইট রয়েছে যেখানে অবৈধভাবে শিশুদের ছবিগুলি ব্যবহার করে, যা তাদের পিতামাতার অ্যাকাউন্টগুলিতে একবার পোস্ট করা হয়েছিল এবং সেটা অনুমতি না নিয়েই দিব্যি ব্যবহার করছে।

 

৪. আপনার শেয়ার করা তথ্যগুলো আপনার সন্তানের প্রাপ্তবয়স্ক জীবনে প্রভাব ফেলতে পারে।

© Depositphotos.com

© Depositphotos.com

কিছু বাবা-মা কখনো এ বিষয়ে চিন্তা করেন না, কিন্তু আজ যে ছবি এবং ম্যাসেজ পোস্ট করা হচ্ছে সেগুলো ভবিষ্যতে তাদের সন্তানদের আপোস করতে পারে। কারণ আজকের এই শিশু বড় হয়ে একটি বড় আন্তর্জাতিক কোম্পানির জন্য কাজ করতে পারে, বা একটি পাবলিক অফিসের জন্য দৌড়াতে পারে বা অন্য জনসাধারণের জন্য কাজ করতে পারে এবং সে নিশ্চয়ই বিতর্কিত শৈশবের ছবি কারণে তার ক্যারিয়ার ঝুঁকিপূর্ণ করতে চাইবে না। মনে রাখবেন, আপনি যে ছবি একবার পোস্ট করেছেন তা ডিলিট করলেও কোন না কোনভাবে সেটা কেউ না কেউ সংরক্ষণ করে রেখে দিতে পারে।

 

৫. সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আপনার সন্তানের ছবি পোস্ট হয়রানির একটা কারণ হতে পারে।

mariahcarey

mariahcarey

একবার আপনি সোশ্যাল মিডিয়াতে আপনার জীবনের একটি অংশ শেয়ার করে নেওয়ার পরে আপনি আর সেটা নিয়ন্ত্রণ করতে পারবেন না। অন্য লোকেরা আপনার সন্তানের ছবির পোস্টে কি প্রতিক্রিয়া জানাবে তা নিয়ন্ত্রণ করতে পারবেন না। অনেকে খারাপ মন্তব্য করতে পারে যা ইন্টারনেট থেকে সহজেই বাস্তব জীবনে প্রভাব ফেলতে পারে।

 

৬. আপনার বাচ্চারা তাদের জীবনকে প্রদর্শনীতে রাখতে নিশ্চয়ই খুশি হবে না।

© Depositphotos.com

© Depositphotos.com

নিজেকে শুধু একবার জিজ্ঞেস করে দেখুন, আপনার পিতামাতা যদি আপনার ছোটবেলার ছবি রাস্তার অপরিচিত মানুষদেরকে দেখাতো তাহলে আপনার নিজেকে কেমন মনে হতো? এই ব্যাপারটাও ঠিক তেমনই। 

 

সোশ্যাল মিডিয়াতে আপনার সন্তানের ছবি শেয়ার করার ব্যাপারে আপনার মতামত কি? আপনিও কি মনে করেন এটা সন্তানদের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ হতে পারে? আপনার আইডিয়াগুলো কমেন্টে শেয়ার করে জানান। আমাদের সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ।

 



জনপ্রিয়