লক্ষ্য অর্জনে ৫ টি সুনিশ্চিত কৌশল লক্ষ্য অর্জনে ৫ টি সুনিশ্চিত কৌশল

লক্ষ্য অর্জনে ৫ টি সুনিশ্চিত কৌশল

একটি লক্ষ্য জীবনের সবচেয়ে ক্ষমতাশালী চালিকাশক্তি গুলোর একটি। লক্ষ্য গুলোই আমাদের সামনের দিকে চালিয়ে নিয়ে যায়। এগুলো আমাদের উদ্দেশ্যপূর্ণ, সুখী এবং স্বাস্থ্যকর অনুভূতি দেয়। পরিষ্কার এবং লিখিত লক্ষ্য ছাড়া আমরা যাই করতে চাইনা কেন, আমরা হারিয়ে যাব।

এখানে থাকলো কিছু শক্তিশালী কৌশল যেগুলো আপনার সুস্পষ্ট এবং লিখিত লক্ষ্য অর্জনে সহায়তা করবে।

 

১. লক্ষ্যগুলো লিখে রাখুন

লক্ষ্য অর্জন করতে শুরু করার আগে অন্ততপক্ষে একটি লক্ষ্য থাকতে হবে ‌। লক্ষ‍্যটি আরো সুনিপুণ এবং পরিষ্কার হবে যখন খুব সাধারণ আর সহজভাবে মনে রাখার মত করে আপনি এটা লিখে রাখবেন।  

 

এখানে কিছু ধারণ থাকলো-

আমি পৃথিবীর সেরা ড্যান্সার!

আমি সর্বশ্রেষ্ঠ ক্রীড়াবিদ!

আমি পৃথিবীর সবচেয়ে উদ্ভাবনী প্রযুক্তি বিষয়ক কোম্পানি তৈরি করেছি।

এই লেখাগুলো এমন একটা বিশ্বাস নিয়ে লেখা হয়েছে যে, এ ঘটনাগুলো ইতোমধ্যে ঘটে গেছে। একবার যখন আপনি বিশ্বাস করতে শুরু করবেন যে এটা ইতোমধ্যে ঘটে গেছে, অন্যান্যরাও আপনার আত্মবিশ্বাস অনুভব করতে পারবে এবং বুঝতে পারবে এটা ঘটা শুরু হয়ে গেছে। 

"যদি সুখী হতে চান, তাহলে এমন একটা লক্ষ্য নির্ধারণ করুন যেটা আপনার চিন্তাকে নিয়ন্ত্রণ করবে, আপনার অন্তর্নিহিত শক্তিকে মুক্ত করবে এবং আপনার আশাকে অনুপ্রাণিত করবে।" - অ‍্যান্ড্রু কার্নেগি

 

২. একপাতার প্ল্যান

আপনার লক্ষ্য নিয়ে একটি সাধারণ এক পাতার পরিকল্পনা, ত্রিশ পাতার বিশাল পরিকল্পনার চেয়ে অনেক বেশি শক্তিশালী। আপনার স্পষ্ট লক্ষ লিখে ফেলার পর, লিখে ফেলুন এটা অর্জন করতে আপনাকে কি কি করতে হবে। এটাকে যতটা সম্ভব সহজ এবং সরাসরি করুন যাতে করে এটাকে প্রতিদিন পড়তে পারেন এবং সে অনুসারে কাজ করতে পারেন। একটি সহজ পরিকল্পনা অনুসরণ করা এবং চালিয়ে নেয়া সহজ।

 

৩. সঠিক দক্ষতা অর্জন করুন

যখন আপনার মস্তিষ্কে একটি ঝালাই করা পরিষ্কার লক্ষ্য থাকবে, একটা সুস্পষ্ট পরিকল্পনা থাকবে তখনই সময় লক্ষ‍্যটি অর্জন করতে যে দক্ষতাগুলো প্রয়োজন সেগুলোর পেছনে বিনিয়োগ করার।

উদাহরণস্বরূপ, আপনি যদি সিনেমার স্টার হতে চান, আপনাকে যত দ্রুত সম্ভব অভিনয় দক্ষতায় উন্নতি করতে হবে। 

লক্ষ্য করুন কিভাবে অন্য শিল্পীরা অভিনয় করছেন, অভিনয়ের ক্লাসে যোগদান করুন, অভিনয় সম্পর্কে পড়াশোনা শুরু করুন এবং সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভাবে নিজের নৈপুণ্য বৃদ্ধি করতে স্থানীয় নাট্যদলে যোগদান করুন এবং যত বেশি সম্ভব অডিশনে অংশগ্রহণ করুন।

যে কোন দক্ষতাই পুরোপুরি ধাতস্থ করতে প্রচুর অনুশীলন দরকার। 

 

৪. শ্রেষ্ঠ মানুষদের দিয়ে নিজের চারপাশ ঘিরে ফেলুন

লক্ষ্য অর্জনের সেরা উপায় হলো এটা নিশ্চিত করা যে, সেরা মানুষরা আপনাকে সাহায্য করছেন। সফলতা পেয়েছেন তারাই যারা মানুষের ক্ষমতা বুঝতে পেরেছেন।

মনে করুন, আপনার লক্ষ্য একজন উদ্যোক্তা হওয়া এবং আপনাকে উদ্যোগী হওয়ার জন্য দক্ষতাগুলো বাড়িয়ে নিতে হবে, আপনার জন্য পরবর্তী ধাপ হলো সেরা মানুষগুলোকে আপনার দলে যোগ করা, যাতে তারা আপনাকে লক্ষ অর্জনে সহায়তা করতে পারেন। এরা হবে এমন মানুষ যাদের আপনি মনে করেন সেরা মার্কেটার যাদের সেরা কাস্টমার এবং ইনভেস্টর আনার ক্ষমতা আছে।

একবার যদি আপনাকে সহায়তা করার জন্য সেরা মানুষগুলো পেয়ে যান, তাহলে লক্ষ্যে পৌঁছানো সহজতর এবং দ্রুততর হবে।

"অন্য মানুষদের জীবনে নিজের প্রভাব এবং ক্ষমতা নিয়ন্ত্রণ করতে জোরদার শৃঙ্খলা লাগে।" - ক্লিন্ট ইস্টউড

 

৫. বিশ্বাসের শক্তি

কোন কিছুই বিশ্বাসের শক্তিকে হারাতে পারেনা। কখনো কখনো চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন হতে পারেন, কখনো কখনো কোনো কিছুই আপনার মত করে চলবে না এবং এরকম মনে হতে পারে যে সবকিছু ছেড়েছুড়ে দিবেন- এ সময় গুলোতেই বিশ্বাস আপনাকে চালিয়ে নিয়ে যাবে।

বেশিরভাগ মানুষই জয় থেকে ইঞ্চিখানেক দূরত্বে ছেড়ে দেয়। আমি নিশ্চিত আপনি তাদের একজন নন, কেননা আপনি নিজের উন্নতি সাধনে সময় ব্যয় করছেন যেটা থেকে আসে সবচেয়ে বেশি আয়! এবার তাহলে বেরিয়ে পড়ুন আর নিজের লক্ষ্য অর্জন করা শুরু করে দিন।

 

 

আপনার লক্ষ্য অর্জন করতে কি ধরনের পরিকল্পনা হাতে নিয়েছেন? কমেন্টে জানাতে ভুলবেন না।

আমাদের আয়োজন ভালো লাগলে লাইক, কমেন্ট, শেয়ারের মাধ্যমে আমাদের সাথেই থাকুন। আমাদের পাশে থাকার জন্য ধন্যবাদ। 



জনপ্রিয়