যে ১৩ টি কাজ আপনার ল্যাপটপকে তিলে তিলে নিঃশেষ করে দিচ্ছে যে ১৩ টি কাজ আপনার ল্যাপটপকে তিলে তিলে নিঃশেষ করে দিচ্ছে

যে ১৩ টি কাজ আপনার ল্যাপটপকে তিলে তিলে নিঃশেষ করে দিচ্ছে

বর্তমান যুগে সব কাজ করতে সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত যন্ত্রটির নাম হলো ল‍্যাপটপ। এটা এমন একটা জিনিস যেটা আমাদের মাঝে বেশির ভাগ লোকই প্রতিদিন ব্যবহার করি, তবে খুব কম সময়েই ভাবি যে এটা সঠিকভাবে ব্যবহার করতে পারছি কিনা। তবে সামান্য অসাবধানতা ও এটার কর্মক্ষমতা তে প্রভাব রাখতে পারে এমনকি মারাত্মক ক্ষতির কারণ হতে পারে।

আজ থাকলো আপনার প্রিয় এই যন্ত্রটির আয়ুষ্কাল কিভাবে বৃদ্ধি করা যায় সে সম্পর্কিত কিছু টিপস।

 

ল্যাপটপ টি যত্নের সাথে নাড়াচাড়া করুন

source: internet

source: internet

যদি ল্যাপটপে সলিড-স্টেট ড্রাইভ (এস এস ডি) না থাকে তবে ল্যাপটপটি খুব যত্নের সাথে নড়াচড়া করতে চেষ্টা করুন। মেকানিক্যাল হার্ডডিস্ক ড্রাইভের যেহেতু অনেক গুলো নড়নশীল পার্টস থাকে, তাই অতিরিক্ত ঝাঁকুনিতে এর ক্ষতি হতে পারে। ফলে আপনার সব ডাটা হারিয়ে যেতে পারে।

 

কেবল গুলো সঠিকভাবে পেঁচিয়ে রাখুন

source: internet

source: internet

‎আপনার হয়তো মনে হতে পারে কেবল গুলো শুধু তার আর রাবার দিয়ে তৈরি এবং এগুলোর কোন কিছুই হবে না। হ্যাঁ খুবই ভালো কথা, হ্যাঁ এগুলোকে ভাঁজ করা যায় পেঁচিয়ে রাখা যায় যেকোনো কিছু করা যায়। তবে যেহেতু আমরা ল্যাপটপ নিয়ে এখানে সেখানে যেতে চাই তাই এর কেবল গুলো বানানো হয় খুবই চিকন এবং হালকা ওজনের তার দিয়ে। ধারালো কোন কিছুর সাথে তাই কেবলটি পেঁচিয়ে রাখবেন না কিংবা সম্পূর্ণভাবে ভাঁজ থাকে এমনভাবেও রাখবেন না। বৈদ্যুতিক সংযোগ দেওয়া অবস্থায় টানাটানি করবেন না-এর কারণে প্লাগ ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে এমনকি চার্জিং এর সমস্যাও দেখা দিতে পারে!

 

সারাদিন ল্যাপটপে চার্জ দিবেন না।

source: internet

source: internet

লিথিয়াম আয়ন ব্যাটারি ব্যাবহার করার ফলে টেকনিক্যালি আধুনিক ল্যাপটপ গুলোকে আপনি ওভারচার্জ করতে পারবেন না। তবে যে মাইক্রো কনট্রোলারটি ল্যাপটপের ব্যাটারি কে ওভারচার্জ হওয়া থেকে বিরত রাখে সেটি নষ্ট হয়ে যেতে পারে। সেক্ষেত্রে নিরবচ্ছিন্ন বৈদ্যুতিক চার্জ ব্যাটারিকে উত্তপ্ত করতে পারে ।

 

ল্যাপটপটি ধীরেসুস্থে খুলুন এবং বন্ধ করুন

source: internet

source: internet

শুধু ডিসপ্লেটি ধরে ল‍্যাপটপটিকে হাতে নেয়ার চেষ্টা করবেন না- এটাই আপনার ল্যাপটপের সবচেয়ে ভঙ্গুর অংশ। যদি কোণায় ধরেন সে ক্ষেত্রে এটি বেঁকে যেতে পারে সময়ের সাথে। ধীরেসুস্থে মাঝ বরাবর ধরে খুলুন এবং বন্ধ করুন।

 

ল্যাপটপের জন্য কুলিং প্যাড কিনুন 

source: internet

source: internet

ল্যাপটপ তৈরি করা হয়েছিল চলাফেরায় সাথে রাখার জন্য, তাই আমরা বেশিরভাগ সময় এটাকে কোলেই রাখি। তবে এটাই আপনার ল্যাপটপ রাখার সবচেয়ে ভালো জায়গা নয়। আপনার কোল অথবা কম্বলের উপর এর ভেন্টিলেশনের জায়গাটি ব্লক হয়ে থাকে, যার কারণে ব্যাটারী অতিরিক্ত উত্তপ্ত হয়। তাই কুলিং প্যাড ব্যবহার করা বেশ উপকারী।

 

ল্যাপটপটিকে চুম্বক থেকে দূরে রাখুন

source: internet

source: internet

যেকোনো হার্ডড্রাইভেরই চুম্বক থাকে, যেখানে ডাটাগুলো জমা থাকে। আপনার ল্যাপটপ টিকে যখন কোন শক্তিশালী চুম্বক এর পাশে রাখেন তখন ম্যাগনেটিক ডিস্টার্বেন্স হতে পারে এবং ডাটা হারিয়ে যেতে পারে। তাই এখনই নিশ্চিত করুন আপনার যন্ত্রটির আশেপাশে কোন শক্তিশালী চুম্বক নেই।

 

চার্জারটি সঠিকভাবে আনপ্লাগ করুন

source: internet

source: internet

যদি খুব ব্যস্তও থাকেন, তবুও প্লিজ সাবধান হওয়ার চেষ্টা করুন। আক্রমণাত্মক এবং দ্রুতগতির নড়াচড়া প্লাগের ক্ষতি করতে পারে যে, কারণে চার্জিং এর সমস্যা হতে পারে। 

 

ল্যাপটপের কাভার ব্যবহার করুন

source: internet

source: internet

ল্যাপটপের কাভার অথবা ব্যাগ হতে হবে নরম এবং ধারালো কণাবিহীন। অন্যান্য জিনিসপত্রের সাথে কাঁধে নিয়ে ব্যাগে রাখলে ল্যাপটপ এর ভেতরকার মেকানিজমের ক্ষয়ক্ষতি হতে পারে।

 

যত্নের সাথে স্ক্রিন পরিষ্কার করুন

source: internet

source: internet

আমরা সবাই জানি স্ক্রিন পরিষ্কার করতে পানি আর কাপড় ব্যবহার করতে পারবেন না। ব্যবহার করতে হবে মাইক্রোফাইবার এবং ল্যাপটপ ক্লিনার। স্ক্রিন যেহেতু খুবই পাতলা তাই জোরে চাপ দেয়ার চেষ্টা করবেন না।

 

নিয়মিত ল্যাপটপ টি শাটডাউন করুন

source: internet

source: internet

যদি দিনের বেলায় ব্যবহার না করে থাকেন, তবে ল্যাপটপটি চালিয়ে রাখবেন না ‌। ননস্টপ কাজ হার্ডড্রাইভের ক্ষতি করে এবং কুলিং সিস্টেম নষ্ট করে দেয়। দিনে যদি কয়েকবার ব্যবহার করা হয়ে থাকে সেক্ষেত্রে স্লীপ মোড ব্যবহার করুন।

 

ল্যাপটপ এর আশপাশ থেকে তরল পদার্থ দূরে রাখুন

source: internet

source: internet

চা কিংবা কফি পান করতে করতে কখনো ল্যাপটপ চালিয়েছেন। আমরা জানি, ল্যাপটপ এবং তরল ঠিক মিশ খায়না। তবে গরম পানীয় ক্ষতি করতে পারে এমনকি যদি আপনি একটা ফোঁটাও না ফেলেন। গরম কিছু বন্ধ লীডের উপর রাখবেন না।

 

হার্ডওয়্যার পরীক্ষা করতে বিশেষজ্ঞের সাহায্য নিন

source: internet

source: internet

ল্যাপটপ যদিও খুবই ম্যানেজঅ‍্যাবল গেজেট, তারপরও নিজে নিজে সব সফটওয়্যার সমস্যার সমাধান করার চেষ্টা করা ঠিক নয়। বরং বিশেষজ্ঞদের জানান। এমন কোন ইউএসবি ডিভাইস কিনবেন না, যেটাতে ল্যাপটপকে টেস্ট করার প্রতিশ্রুতি দিয়ে থাকে। এধরনের ইউএসবি ড্রাইভ যখন ল্যাপটপে লাগানো হয়, তখন এগুলোর ভেতরে থাকা ক্যাপাসিটর গুলো চার্জ হতে থাকে এবং ল্যাপটপের সমস্ত পাওয়ার ব্যাবহার করে নেয় এবং এটাকে থামিয়ে দেয়।

 

বোনাসঃ

যেই চিহ্নগুলো দেখলে বুঝবেন আপনার ল্যাপটপটি হয়তো নষ্টের পথে-

আগের উপদেশগুলো ছিল কিভাবে আপনার ল্যাপটপকে বেশিদিন টিকিয়ে রাখবেন সেই বিষয়ে। এবার পড়ুন কিছু সাবধানতার চিহ্ন সম্পর্কে যেগুলো দেখলেই বুঝবেন ল্যাপটপটিতে বড় কোনো সমস্যা হয়েছে।

  • হার্ডড্রাইভ যদি ধীরে কাজ করে অথবা খুব শব্দ করে।
  • সামান্য কিছু কাজ যেমন কোন কিছু টাইপ করতে গিয়ে হ‍্যাঙ্গ করে, অথবা আগের চেয়ে অনেক বেশি ধীর গতির হয়ে যায়।
  • ফ্যান হঠাৎ হঠাৎ খুব শব্দ করে।
  • যখন অন করা হয়, তখন ল্যাপটপটি অদ্ভুত শব্দ করে।
  • নিজে নিজে সময়ে-অসময়ে রিস্টার্ট করে।

উইন্ডোজ সার্ভিস কন্ট্রোল ম্যানেজার অনেকগুলো মিসটেক দেখায়। সব গুলো সিস্টেম সেটিংস দেখতে, চলে যান This PC — Manage — Event Viewer.

 

আমাদের আয়োজন ভালো লাগলে লাইক, কমেন্ট, শেয়ারের মাধ্যমে আমাদের সাথেই থাকুন। আমাদের পাশে থাকার জন্য ধন্যবাদ।



জনপ্রিয়